পড়াশোনা সবসময় সবখানে

মৃত মস্তিষ্ক আংশিক সচল করতে সক্ষম চিকিৎসা বিজ্ঞান

2019-Apr-19 3:54 AM
ব্রেইনের গঠন

চিকিৎসা বিজ্ঞানের এক নতুন যাত্রা শুরু করল যুক্তরাষ্ট্রের একদল গবেষক তাঁরা একটি প্রাণীর মৃত্যুর চার ঘণ্টা পর তার মস্তিক আংশিক সচল করতে সক্ষম হয়েছে। গবেষণাটি সফল হলে আলঝেইমারের মতো রোগ নিরাময়ে নতুন পথের দেখা পাওয়া যেতে পারে বলে আশা করেছেন তাঁরা।

যুক্তরাজ্যের বিজ্ঞান সাময়িকী নেচার গত বুধবার এ সংক্রান্ত একটি গবেষণা নিবন্ধ প্রকাশ করেছ। যুক্তরাষ্ট্রের কানেটিকাটের নিউ হ্যাভেনে অবস্থিত ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক তাঁদের গবেষণার অংশ হিসেবে একটি শূকরকে বেছে নিয়েছিল। বিজ্ঞানীরা বলছেন, শুধু আলঝেইমার চিকিৎসা নয়, স্ট্রোক কিংবা জম্নের সময় অক্সিজেন ঘাটতির কারণে সৃষ্ট জটিলতা গুলো থেকে মস্তিষ্ককে রক্ষায়ও এই গবেষণা পথ দেখাতে পারে।

এত দিন ধারণা ছিল, মৃত্যুর কয়েক মিনিটের মগ্যেই মস্তিষ্কের কোষগুলোর মৃত্যু ঘটতে থাকে। রক্তপ্রবাহ বন্ধ হয়ে  যাওয়া এবং অক্সিজেনের ঘাটতির কারণে এমনটা হয়। ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা নিজেদের তৈরি একটি ব্যবস্থার মাধ্যমে পাম্প করে বিশেষ একটি তরলকে রক্তের মতোই ছন্দাকারে প্রবাহিক করেন। ওই তরলে কৃত্রিম রক্ত ছিল, যা অক্সিজেন সরবরাহ করতে সক্ষম। এছাড়া এতে বিশেষ একধরনের ওষুধও ছিল, যা মস্তিষ্কের কোষগুলোর মৃত্যু ধীর করে দেয়।

গবেষকেরা বলেছেন, গবেষণার  একপর্যায়ে তাঁরা মৃত প্রানীটির মস্তিষ্কে কিছু কার্যক্রম লক্ষ করেন। মস্তিষ্কের কোষগুলো ওষুধের পরিপ্রেক্ষিতে স্বাভাবিক প্রতিক্রিয়া দেখাতে শুরু করে। এ ছাড়া জীবিত প্রাণীর মস্তিষ্কের মতোই মৃত প্রানীটির মস্তিকও একই পরিমাণ অক্সিজেন ব্যবহার করতে শুরু করে। তবে মস্তিষ্কের বৈদ্যুতিক কার্যক্রম আবার চালু করতে পারেননি গবেষকেরা।

এ ব্যাপারে ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নায়ুবিদ্যার অধ্যাপক ও গবেষণা নিবন্ধের সহলেখক নেনাদ সেন্তান বলেন, ‘আমরা দেখাতে পেরেছি যে মস্তিষ্কের কোষগুলোর মৃত্যুর বিষয়টি আসলে ধীর ও ধাপে ধাপে সম্পন্ন হয়। এসব প্রক্রিয়ার কোনো কোনোটা স্থগিত কিংবা সংরক্ষণ কিংবা বিপরীত মুখীও করা যায়।’
 


News all time